শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ০৮:৫৮ অপরাহ্ন
নোটিশ:
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। * অফিসের ঠিকানাঃ জিএস ভবন, আলতাফুন্নেসা খেলার মাঠের পশ্চিমে, শেরপুর রোড, সাতমাথা, বগুড়া। মোবাইলঃ ০১৭১১ ৪২৭৩১৬ ইমেইলঃ jonotatv.com@gmail.com * এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

ধর্ম থেকে সন্ত্রাসকে আলাদা করতে হবে: মোদী

Reporter Name / ৪৫ Time View
Update : সোমবার, ২৩ নভেম্বর, ২০১৫

প্যারিসে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার পর বিশ্বব্যাপী চরম উদ্বেগের মধ্যে সন্ত্রাস ও ধর্মের যোগ ছিন্ন করার আহ্বান জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।
আসিয়ান সম্মেলন উপলক্ষে মালয়শিয়া সফরে থাকা মোদী সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলায় বিশ্ব নেতাদের রাজনৈতিক মতাদর্শের ঊর্ধ্বে উঠে নতুন সংকল্প ও কৌশল নির্ধারণেরও আহবান জানান।
এনডিটিভি জানিয়েছে, রোববার কুয়ালালামপুরে মালয়শিয়া এক্সিবিশন অ্যান্ড কনভেনশন সেন্টারে প্রবাসী ভারতীয়দের এক সমাবেশে দেওয়া বক্তৃতায় সন্ত্রাসকে বিশ্বের জন্য ‘সবচেয়ে বড় হুমকি’ বলে মন্তব্য করেন মোদী।
তিনি বলেন, “আমাদের অবশ্যই ধর্ম ও সন্ত্রাসকে আলাদা করতে হবে। আর এ দু’য়ের মধ্যে পার্থক্য নির্ধারিত হবে কারা মানবতার পক্ষে আর কারা বিপক্ষে তা দিয়ে।
“সন্ত্রাস ও সন্ত্রাসীদের কোনো সীমানা নেই। তারা ধর্মকে ব্যবহার করে ঠিকই, কিন্তু সব ধর্মের লোককেই হত্যা করে।”
ভারতে মোদীর দল বিজেপিকেও উগ্রবাদের সমর্থনপুষ্ট দল হিসেবে বিবেচনা করা হয়।
গতকিছুদিন ধরে দেশটিতে লেখক হত্যা, বিরোধী রাজনীতিক ও সংখ্যালঘুদের উপর হামলা এবং গরুর মাংস খাওয়া নিষিদ্ধে বিজেপির মিত্র রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘর (আরএসএস) প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণের খবর পাওয়া যাচ্ছিল। এ নিয়ে বিরোধী দলগুলো মোদীর ভূমিকা ও নীরবতার তীব্র সমালোচনা করে আসছিল।
এর আগে সকালে আসিয়ান সম্মেলনও মোদী সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে একাট্টা হতে বিশ্ব নেতাদের প্রতি আহবান জানান।
সম্মেলনে তিনি বলেন, “প্যারিস, তুরস্ক, বৈরুত, মালি এবং রাশিয়ান বিমানে হামলা আমাদের মনে করিয়ে দেয়, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ আমাদের সমাজ ও বিশ্বে কিভাবে ছড়িয়ে পড়ছে, কিভাবে তার সদস্য বাড়াচ্ছে ও লক্ষ্য নির্ধারণ করছে।”
এটাই মোদীর প্রথম আসিয়ান সম্মেলন। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর এ সম্মেলনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাও উপস্থিত ছিলেন।
সম্মেলনের বক্তৃতায় ওবামা জঙ্গিগোষ্ঠী আইএস মোকাবেলায় রাশিয়ার সঙ্গে মতৈক্যের কথা জানিয়ে বলেন, রাশিয়ার কৌশলের উপরই এখন অনেক কিছু নির্ভর করছে।
“এখন দেখার বিষয়, তারা (রাশিয়া) কিভাবে তাদের কৌশল সমন্বয় করবে, যা যুক্তরাষ্ট্র ও আরও ৬৫টি দেশকে তাদের ‘কার্যকরী বন্ধু’ হিসেবে উপস্থাপন করবে।”
সম্মেলনে অংশ নেওয়া জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুন সন্ত্রাস মোকাবেলায় আগামী বছর একটি ‘স্বয়ংসম্পূর্ণ কৌশল’ প্রণয়নের কথা জানান।


এই বিভাগের আরো খবর
এক ক্লিকে বিভাগের খবর