শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ০৯:৩৮ অপরাহ্ন
নোটিশ:
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। * অফিসের ঠিকানাঃ জিএস ভবন, আলতাফুন্নেসা খেলার মাঠের পশ্চিমে, শেরপুর রোড, সাতমাথা, বগুড়া। মোবাইলঃ ০১৭১১ ৪২৭৩১৬ ইমেইলঃ jonotatv.com@gmail.com * এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

নীলফামারীতে আরএমও কর্তৃক শ¬ীলতাহানির শিকার রোগীনি

Reporter Name / ১৮ Time View
Update : বুধবার, ২২ জুলাই, ২০১৫

নীলফামারী সংবাদাতা ঃ জেলার সৈয়দপুর উপজেলার ১শ’ শয্যা হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল কর্মকর্তা (আরএমও) কর্তৃক রোগিনীর শ¬ীতহানির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় এলাকাবাসীর হাতে ওই ডাক্তার লাঞ্ছিত হয়েছেন। গতকাল সোমবার রাতের এ ঘটনায় গোটা শহরে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। জানা যায়, পাশ্ববর্তী দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুর উপজেলার বেলাইচন্ডি ইউনিয়নের সোনাপুকুর এলাকার মালিহা ফেরদৌস (২০) নামের ওই রোগিনী চিকিৎসার জন্য হাসপাতালের আরএমও’র কাছে আসেন। আরএমও ডাঃ আবদুর রহিম চেকআপ ও অপারেশনের জন্য তাকে শহরের সিটি কমিউনিটি হাসপাতালে ভর্তি হবার পরামর্শ দেন। পরবর্তীতে ওই ক্লিনিকে সকল রোগী ও স্টাফদের বের করে দিয়ে রোগীর বিভিন্ন স্পর্শকাতর জায়গায় হাত দিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শুর“ করে আরএমও ডাঃ আবদুর রহিম। একপর্যায়ে রোগিনী কোনোমতে র“ম থেকে বেড়িয়ে এসে ঘটনাটি পরিবারের লোকজনকে জানায়। এতে পরিবারের লোকজন ও এলাকাবাসী ক্ষিপ্ত হয়ে চড়াও হয় ওই ডাক্তারের উপর। উত্তেজিত লোকজন আএমও কে বেদম মারধর করে। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত আরএম ডা. আবদুর রহিম তার বির“দ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করলেও লাঞ্ছিতা রোগীর স্বামী সৈয়দপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। ওই রোগীনির স্বামী আবদুল করিম জানান, তীব্র পেটের ব্যথার কারণে স্ত্রীকে হাসপাতালে নিয়ে আসলে ডা. আবদুর রহিম সিটি কমিউনিটি হাসপাতালে ভর্তির পরামর্শ দেন এবং ক্লিনিকে তার স্ত্রীকে প্রায় বিবস্ত্র করে আলট্রাসনোগ্রাম করেন এবং অপারেশনের টেবিলে নিয়ে বিভিন্ন স্পর্শকাতর জায়গায় হাত দেন এবং বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে শ্ল¬¬ীলতাহানি ঘটান। শ্ল¬¬ীলতাহানির শিকার রোগীনি মালিহা ফেরদৌস সাংবাদিকদের জানান, পেটের ব্যথায় যখন তিনি মরণাপন্ন তখন, তার উপর ডাক্তারের অনৈতিক কর্মকাণ্ডে তিনি বাধ্য হয়েই বাইরে বেড়িয়ে এসে ঘটনাটি পরিবারের লোকজনকে জানান। এ ব্যাপারে নীলফামারী সিভিল সার্জন ডা. আবদুর রশীদ বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখা হ”েছ বলে জানান। অপর দিকে থানায় অভিযোগ দাখিলের পর সৈয়দপুর থানার ওসি ইসমাইল হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।


এই বিভাগের আরো খবর
এক ক্লিকে বিভাগের খবর